পর্দা সম্পর্কিত কয়েকটি মাসআলা জেনে নিন ।

পর্দা সম্পর্কিত কয়েকটি মাসআলা জেনে নিন ।

বোনদের জন্য

  • শরীআতে গায়র মাহরাম পুরুষের সঙ্গে পর্দা করা ওয়াজিব। নারীর পক্ষে কামভাব নিয়ে কোনাে বেগানা পুরুষের প্রতি দৃষ্টিপাত করা হারাম। তবে অনিচ্ছাকৃতভাবে হঠাৎ যে দৃষ্টি পড়ে যায় তা মাফ; তবে সে দৃষ্টিকে দীর্ঘায়িত করা যাবে না।
  • নারীদের চেহারাও পর্দার হুকুমের অন্তর্ভুক্ত। * দাড়িবিহীন বালকের প্রতিও বদনিয়ত ও কামভাব সহকারে দৃষ্টিপাত করা হারাম।
  • চলা-ফেরা ও কাজকর্মের সময় বা লেন-দেনের সময় প্রয়ােজন হয় নারীর জন্য মুখমণ্ডল, হাতের তালু, আঙ্গুল ও পদযুগল খােলারও অনম রয়েছে। কিন্তু পুরুষের জন্য বিনা প্রয়ােজনে নারীর এগুলাের প্রতি দৃষ্টি করা জায়িয নয়। (৩৩ ৮ )

* যাদের সঙ্গে নারীকে পর্দা করতে হয় না অর্থাৎ, যাদের সামনে। নারীগণ যেতে পারেন তাদের একটি তালিকা নিম্নে প্রদান করা হল।

১। নিজ স্বামী (যার নিকট স্ত্রীর কোনাে অঙ্গের পর্দা নেই। তবে বিনা। প্রয়ােজনে বিশেষ অঙ্গ দেখা অনুত্তম)।

২। পিতা (আপন হােক বা সৎ । দুধ পিতাও এর অন্তর্ভুক্ত)।

৩। দাদা (দাদার পিতা বা আরও যত উপরে যাক এর অন্তর্ভুক্ত)।

৪। নানা (নানার পিতা বা আরও যত উপরে যাক এর অন্তর্ভুক্ত)।

৫। চাচা (আপন হােক বা সৎ)।

৬। ভাই (আপন হােক বা বৈমাত্রেয় বা বৈপিত্রেয়) তবে চাচাত মামাত খালাত ফুফাতাে ভাইয়ের সঙ্গে পর্দা করতে হবে। দুধ ভাইয়ের সঙ্গে দেখা দেয়া। যায়।।

৭। ভ্রাতুস্পুত্র (আপন ভাইয়ের পুত্র হােক বা বৈমাত্রেয় ভাইয়ের বা বৈপিত্রেয়। ভাইয়ের)।

৮। ভাগিনা (আপন বােনের ছেলে হােক বা সৎ বােনের)।

৯। ছেলে (আপন হােক বা সৎ)।

১০। আপন শ্বশুর, আপন দাদা শ্বশুর ও আপন নানা শ্বশুর ব্যতীত অন্য সকল প্রকার শ্বশুরের সঙ্গে পর্দা করতে হবে।

১১। মামা (আপন হােক বা সৎ)।।

১২। নাতী (আপন ছেলের ঘরের হােক বা মেয়ের ঘরের হােক)।

১৩। জামাই (আপন মেয়ের জামাই)।

  • নির্বোধ, ইন্দ্রিয়বিকল ধরনের লােক বা ঐসব বালক যারা বিশেষ। কাজ কারবারের দিক দিয়ে নারী পুরুষের মধ্যে কোনাে পার্থক্য বুঝে না, তাদের সঙ্গে পর্দা করা জরূরী নয়- তারাও পর্দার হুকুম থেকে ব্যতিক্রম। আল্লাহ যুবসমাজকে সবকিছু আমল করার তাওফীক দান করুন। আমীন।

“যদি জীবন গড়তে চান”

এই বইটি থেকে আমাদের এই পোস্টি নেওয়া । এই হাদীছ বিষয়ে আরো বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে এই বইটি মধ্যে ,বইটি নিতে চাইলে যে কোনো
ইসলামিক লাইব্রেরী থেকে সংগ্রহ করতে পারেন । বইটি লিখেছেন..

মাওলানা মুহাম্মাদ হেমায়েত উদ্দীন।

গ্রন্থকার, আহকামে যিন্দেগী, ফাযায়েলে যিন্দেগী, বয়ান ও খুতবা, ইসলামী আকীদা ও ভ্রান্ত মতবাদ,

ফিকহুন্ নিছা, আহকামে হজ্জ, কুরআন হাদীছ ও ইসলামী ইতিহাসের মানচিত্র ও ইসলামী মনােবিজ্ঞান প্রভৃতি।

বিদ্র্যঃ আমাদের টাইপিং এ কোনো ভুল হয়ে থাকলে ক্ষমা দৃষ্টিতে দেখবেন । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *